1. [email protected] : দেশ রিপোর্ট : দেশ রিপোর্ট
  2. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  3. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন : Renex অনলাইন
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন

স্কুলছাত্রী অবস্থায় যারা সিনেমার নায়িকা হয়েছেন

নিজস্ব সংবাদদাতা
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনে যেসব মুখ উজ্জ্বল হয়েছে, আলোকিত হয়েছে- তাদের উল্কাপাত শুরু হয়েছিল স্কুলে পড়াকালীন। রুপালি পর্দায় দ্যুতি ছড়িয়েছেন স্কুলে পড়ার সময়ই। এ রকম আলোকিত ও গুণী অভিনেত্রীদের নিয়েই এই আয়োজন।

শাবানা
১৯৬৭ সালে ‘চকোরি’ চলচ্চিত্রে চিত্রনায়ক নাদিমের বিপরীতে তাঁর চলচ্চিত্রে আবির্ভাব ঘটে। শাবানার প্রকৃত নাম রত্না, শাবানা তাঁর চলচ্চিত্রের নাম, যা চিত্র পরিচালক এহতেশাম প্রদান করেন। তাঁর ভালো নাম আফরোজা সুলতানা। শাবানার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার তাই ইতি ঘটে মাত্র ৯ বছর বয়সে। আর পর্দায় অভিষেক ১৫ বছর বয়সে। বলা যায়, স্কুলের গণ্ডি পেরোনোর আগেই চলচ্চিত্রে পদার্পণ করেন ১১ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া এই অভিনেত্রী। শাবানা অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ছিল ‘ঘরে ঘরে যুদ্ধ’।

ববিতা
১৯৬৯ সালে শেষ পর্যন্ত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন প্রথম নায়িকা চরিত্রে। ১৯৬৯ সালের ১৪ আগস্ট চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় এবং ওই দিন তাঁর মা মারা যান। তাঁর কর্মজীবনের শুরুতে ভগ্নিপতি জহির রায়হানের পথ প্রদর্শনে চললেও পরে তিনি একাই পথ চলেছেন। ৭০-এর দশকে শুধু অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি গোটা দশকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন। ববিতা পড়াশোনা করেছেন যশোর দাউদ পাবলিক বিদ্যালয়ে। সেখানে অধ্যয়নকালে বড় বোন কোহিনুর আক্তার চাটনীর (সুচন্দা) চলচ্চিত্রে প্রবেশের সূত্রে পরিবারসহ চলে আসেন ঢাকায়। গেণ্ডারিয়ার বাড়িতে শুরু হয় কৈশোরের অবশিষ্টাংশ। চলচ্চিত্রে অত্যন্ত ব্যস্ত হয়ে পড়ায় প্রাতিষ্ঠানিক সার্টিফিকেট অর্জন না করলেও ববিতা ব্যক্তিগতভাবে নিজেকে শিক্ষিত করে তোলেন। দক্ষতা অর্জন করেন ইংরেজিসহ কয়েকটি বিদেশি ভাষায়। নিজেকে পরিমার্জিত করে তোলেন একজন আদর্শ শিল্পীর মাত্রায়।

পূর্ণিমা
পূর্ণিমার চলচ্চিত্র জগতে পথচলা শুরু হয়েছিল জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবির মাধ্যমে। তখন তিনি মাত্র নবম শ্রেণিতে পড়েন। ড. তুহিন মালিক পরিচালিত ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিলো না’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে ২০১০ সালে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন ‘এ জীবন তোমার আমার’ দিয়ে। চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় ১৯৯৭ সালে, তখন তিনি ক্লাস নাইনে পড়তেন।

অমৃতা খান
অমৃতাও বাংলাদেশি অভিনেত্রী এবং মডেল। ২০০২ সালে মডেল ও নৃত্যশিল্পী হিসেবে তিনি মিডিয়াতে প্রথম পা রাখেন। তিনি একটি নাটকেও কাজ করেছেন, যার নাম ‘উনিশ বছর পরে’। ২০১৩ সালে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রে তার অবির্ভাব ঘটে রয়েল এবং অনিক দুজন নতুন পরিচালকের যৌথ পরিচালনায় ‘গেইম’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে, চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় ২০১৫ সালের ২ জানুয়ারি। এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সময় তিনি একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে ও লেভেলে পড়ছিলেন।

পূজা চেরি
চলতি বছর পোড়ামন ২ ছবির নায়িকা হিসেবে অভিনয় করতে যাচ্ছেন শিশুশিল্পী পূজা চেরি। ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট গার্লস পাবলিক স্কুলে নবম শ্রেণিতে পড়েন পূজা। স্কুলের গণ্ডি না পেরোতেই দুই ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন পূজা চেরি। গত ৬ এপ্রিল পোড়ামন ২ ছবির নায়িকা হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয় পূজার। তার বিপরীতে অভিনয় করবেন রোশান। পোড়ামন ২ এর কাজ শুরু না হতেই এলো নতুন খবর। এবার কলকাতার আদিত্যর বিপরীতে ‘নূরজাহান’ নামের একটি ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন। কলকাতার রাজ চক্রবর্তী প্রডাকশনের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় থাকছে বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া। আলোচিত মারাঠি ছবি ‘সাইরাত’-এর রিমেক ‘নূরজাহান’। পরিচালনা করবেন রাজের সহকারী অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়।

শেয়ার:
আরও পড়ুন...
স্বত্ব © ২০২৩ দৈনিক দেশবানী
ডিজাইন ও উন্নয়নে - রেনেক্স ল্যাব