1. [email protected] : দেশ রিপোর্ট : দেশ রিপোর্ট
  2. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  3. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন : Renex অনলাইন
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩১ অপরাহ্ন

ছেলে কি সফল হবে? সন্দেহে রোনালদো

নিজস্ব সংবাদদাতা
  • শুক্রবার, ৫ মার্চ, ২০২১

বিখ্যাত বাবার সন্তান হওয়া এক বিরাট ঝক্কি। চব্বিশ ঘণ্টা আতশ কাচের নিচে থাকতে হয়, বাবার কীর্তি ছাপিয়ে যেতে পারছেন কি না, বাবার সম্মান রাখতে পারছেন কি না—আলোচনা হয়। সেই চাপে কেউ ভেঙে পড়েন, কারও মনে আবার অগ্নিস্ফুলিঙ্গের মতো সে আলোচনা-সমালোচনাগুলো জন্ম দেয় প্রেরণার—ভালো করার প্রেরণা। সুনীল গাভাস্কারের ছেলে রোহান গাভাস্কার, ডন ব্র্যাডম্যানের ছেলে জন ব্র্যাডম্যান, ইয়োহান ক্রুইফের থেকে জর্দি ক্রুইফ প্রথম দলের অংশ হলে সেজারে মালদিনি-পাওলো মালদিনি, সুকুমার রায়-সত্যজিৎ রায়, ভ্যালেন্তিনো মাজোলা-সান্দ্রো মাজোলা, যোগরাজ সিং-যুবরাজ সিং নিঃসন্দেহে দ্বিতীয় দলের। কিন্তু ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ছেলে ক্রিস্টিয়ানো জুনিয়র কোন দলের অংশ হবেন?

এখনই সেটা অনুমান করতে যাওয়া বড্ড ঝুঁকির কাজ। মাত্রই দশ বছর পেরিয়েছে ছোট্ট রোনালদো। বাবার মতো সাফল্যবুভুক্ষু হবে কি না, সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে জুভেন্টাসের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে তার সাফল্য ও বাবার সঙ্গে তাঁর নিয়মিত অনুশীলনের ভিডিওগুলো কিন্তু ভক্তদের মধ্যে যথেষ্টই আশা জাগায়। রোনালদো নিজে আশাবাদী হতে পারেন তো? কিংবদন্তি বক্সার খাবিব নুরমাগোমেদভের কথা মানলে বলতে হয়, রোনালদো নিজেই সন্দিহান, ছেলে সফল হবেন কি না!

ইউএফসির বিখ্যাত এই কুস্তিগির লাইটওয়েট শ্রেণিতেই শুধু নন, যেকোনো শ্রেণিতেই ইতিহাসের অন্যতম সেরা কুস্তিগির মানা হয় রাশিয়ান এই তারকাকে। সম্প্রতি চ্যাম্পিয়ন থাকা অবস্থাতেই অবসর নিয়েছেন। রোনালদোর সঙ্গে তাঁর সখ্য আজকের নয়। কিছুদিন আগে এই দুই তারকার একসঙ্গে ছবি প্রকাশিত হওয়ার পরই প্রথম রোনালদো-খাবিবের বন্ধুত্বের কথা জানা যায়। কিন্তু সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে খাবিব যেভাবে খোলামেলাভাবে রোনালদোকে নিয়ে কথা বলেছেন, বলাই যায়—দুজনের বন্ধুত্ব আজকের নয়।

রাশিয়ার ইউটিউব তারকা ক্রাসাভাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে খাবিব জানিয়েছেন, রোনালদো-সখ্যর কথা, ‘আমরা প্রায় প্রতিদিনই কথা বলি। একে অপরের সঙ্গে অনেক কথা বলি। আমরা যখন প্রথম দেখা করলাম, আমাদের আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল, নিয়মিত জেতার এই প্রেরণা কোত্থেকে পাই আমরা, সেটা।’

বন্ধুর সঙ্গে কথা বলতে বলতেই বন্ধুর সবচেয়ে বড় ভীতির কথা জেনে গেছেন খাবিব, ‘রোনালদো চায় ওর ছেলে ওকে ছাড়িয়ে যাক। ক্রিস্টিয়ানো যখন ছোট ছিল, তখন ওর স্বপ্ন ছিল একজোড়া বুট পাওয়া। ওর ছেলের ওসব সমস্যা নেই।’

দারিদ্র্যের জ্বালা নেই দেখেই বলে রোনালদো ভয় পান, ক্রিস্টিয়ানো জুনিয়র হয়তো তাঁর মতো সাফল্যবুভুক্ষু হবে না, ‘ও ভয় পায় ওর ছেলের হয়তো ওর মতো জেতার তাড়া থাকবে না। জেতার সেই ইচ্ছেটা থাকবে না। সফল মানুষের সাফল্যের সবচেয়ে বড় নিয়ামক এই জয়ক্ষুধাটা। যখন আপনি ছোট থেকেই সবকিছু পেয়ে যাবেন, ওই অনুপ্রেরণাটা পাওয়া কঠিন হয়ে যায়।’

বাবার ভয় কি আদৌ বাস্তব হবে কি না, সেটা প্রমাণ করা বা না করার জন্য ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর এখনো সারা জীবন পড়েই আছে!

শেয়ার:
আরও পড়ুন...
স্বত্ব © ২০২৩ দৈনিক দেশবানী
ডিজাইন ও উন্নয়নে - রেনেক্স ল্যাব