1. [email protected] : দেশ রিপোর্ট : দেশ রিপোর্ট
  2. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  3. [email protected] : নিউজ ডেস্ক : নিউজ ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন : Renex অনলাইন
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৯:০৪ অপরাহ্ন

অনুতাপ নেই সাকিবের

নিজস্ব সংবাদদাতা
  • সোমবার, ২২ মার্চ, ২০২১

কারো কারো মতে আগুনে ঘি ঢেলে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সেই আগুনের উত্তাপ পৌঁছে গেছে সর্বত্র। ফেসবুক লাইভে সাকিবের করা বিসিবির সমালোচনার পর নড়ে চড়ে বসেন বিসিবির কর্মকর্তারা। করণীয় ঠিক করতে রবিবার সন্ধ্যায় গুলশানে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় ছুটে গিয়েছেন তারা। সভার পর জাতীয় দলের সাবেক দুই অধিনায়ক এবং বিসিবি পরিচালক আকরাম খান ও নাঈমুর রহমান বলেছেন বাংলাদেশ দলের চলমান নিউজিল্যান্ড সফর ও বোর্ডের আরও কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য সভাটা আগেই নির্ধারিতই ছিল। কিন্তু ঘটনাক্রমে সেখানে আলোচনার বিষয় হয়ে ওঠে সাকিবের ফেসবুক লাইভ। প্রতিনিয়ত নানা সমালোচনার জন্ম দিয়ে যাচ্ছেন সাকিব। স্পট ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব গোপন করে নিষিদ্ধ হওয়া অলরাউন্ডার সাকিব হাসান ফের বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন।

সাকিবের মন্তব্য নিয়ে যখন ক্রীড়াঙ্গন তোলপাড় তখন এ মন্তব্য নিয়ে কোনো অনুতাপ নেই সাকিবের। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার রবিবার আরেকটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন, কথায় কথায় প্রসঙ্গ এসেছে, যা ঠিক মনে করেছি বলে দিয়েছি।

রোববার রাতে বাংলাদেশের এক ক্রীড়া সাংবাদিককে দীর্ঘ সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সাকিব। উৎপলের ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে সেই সাক্ষাৎকার প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে সাকিব যা বলেছেন, ‘আমি প্ল্যান করে কিছু বলি না। যা মনে আসে, তা-ই বলি। যা বিশ্বাস করি, তা-ই বলি,’ মন্তব্য করে সাকিব বলেন, ‘যা ঠিক মনে করি, বলে দিয়েছি। ’
এর প্রতিক্রিয়া কী হতে পারে সেই ভাবনাও সাকিবের মনে আসেনি, ‘কী প্রতিক্রিয়া হবে, এ নিয়ে ভাবি না। আমি চিন্তা করলে বড় চিন্তা করি। আ”ছা আপনিই বলেন, আমি যা বলেছি, তাতে কি আমার নিজের কোনো লাভ আছে? নিজের লাভ তো গাধাও বোঝে। আমি ক্রিকেটের বৃহত্তর স্বার্থে কথাগুলো বলেছি। কারও যখন বলার সাহস নাই, আমিই না হয় বললাম। আমার ব্যক্তিগত লাভের জন্য তো বলি নাই। কেউ যদি এটা ভালোভাবে নিতে চায়, তা ক্রিকেটের জন্য ভালো হবে। আমরা যদি ভালো করতে চাই, বাংলাদেশের ক্রিকেটের উন্নতি চাই, তাহলে তো আমি আমার কথায় কোনো সমস্যা দেখি না।’

আকরাম খান-নাঈমুর রহমানের সমালোচনা প্রসঙ্গে সাকিব বলেছেন, না, না, আমি তো কোনো ব্যক্তি নিয়ে কথা বলি নাই। দুর্জয় ভাই (নাঈমুর) যে এইচপির দায়িত্বে, এটা আমি পরে জেনেছি। সত্যি বলছি, আমি জানতাম না। আমি এইচপির কাজকর্ম নিয়ে কথা বলেছি। ভাসা ভাসা চোখে মনে হবে, ভালোই তো চলছে। একাডেমি বিল্ডিংয়ে প্লেয়াররা থাকছে, প্র্যাকটিস করছে। কিন্ত গত ২/৩ বছরে এইচপি থেকে কয়টা প্লেয়ার উঠে এসেছে? প্রতি বছর তো অন্তত ২/৩ জন প্লেয়ার আসা উচিত। কারণ এইচপি আশি পার্সেন্ট রেডি প্লেয়ার নিয়ে কাজ করে, কাজ বলতে তো বাকি ২০ পার্সেন্ট রেডি করা। ন্যাশনাল টিম থেকে বাদ পড়া প্লেয়ারও তো থাকে। আকরাম ভাইয়ের কথা বলেছি, কারণ উনি বলেছেন, আমি টেস্ট খেলতে চাই না। কিন্ত বোর্ডের সিইওকে দেয়া চিঠিতে আমি তো টেস্টের কথা কিছু লিখিইনি। আপনি চেক করে দেখতে পারেন। আমি ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ থেকে কিছু বলি নাই। আকরাম ভাই ক্রিকেট অপারেশনসের চেয়ারম্যান। ন্যাশনাল টিম ভালো করলে যেমন উনি কৃতিত্ব পাবেন, খারাপ করলে তেমনি দায়ও নিতে হবে। সবাই শুধু ঢালাওভাবে প্লেয়ারদের দোষ দিয়ে যাবে, এটা তো ঠিক না। বোর্ড- প্লেয়ার সবাই মিলেই তো একটা টিম। সবারই সবকিছু ভাগ করে নিতে হবে। ১০০ কেজি বোঝা ১০ জন ভাগ করে নিলে একজনের জন্য তা ১০ কেজি হয়ে যায়। একজন নিলে ১০০ কেজি। কদিন পর পর যদি বলা হয়, একে বাদ দেব, ও চলে না এটা তো টিমের জন্যও ক্ষতিকর। কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আঘাত করা আমার উদ্দেশ্য না। আমি ব্যক্তি নিয়ে কথা বলি নাই, চেয়ার নিয়ে-দায়িত্ব নিয়ে কথা বলেছি। আকরাম ভাই ক্রিকেট অপারেশনসের চেয়ারম্যান। ন্যাশনাল টিম ভালো করলে যেমন উনি কৃতিত্ব পাবেন, খারাপ করলে তেমনি দায়ও নিতে হবে।’

শনিবার রাতে ফেসবুক লাইভে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের প্রশংসা প্রসঙ্গে উৎপল শুভ্রকে সাকিব বলেছেন, আপনি তো আমাকে চেনেন। আমি কাউকে খুশি করতে কিছু বানিয়ে বলতে পারি না। আমি পাপন ভাই আর সুজন ভাইয়ের প্রশংসা করেছি। সুজন ভাই ডেভেলপমেন্টে ভালো কাজ করছেন। এই যে আন্ডার নাইনটিন টিমটা ওয়ার্ল্ড কাপ জিতল, ওদের দেখাশোনা তো সুজন ভাই-ই করেছেন। আলাদা করে রেখেছেন, অনেকগুলো ট্যুরে পাঠিয়েছেন। ২০টার জায়গায় ৫টা ট্যুর করলে ওরা হয়তো ওয়ার্ল্ড কাপ জিততে পারত না।

পাপন ভাইয়ের সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আমার যে পরিমাণ কথা হয়, তাতে আমি বুঝতে পারি, ওনার ভালো কিছু করার ইচ্ছা আছে। সবারই লিমিটেশন থাকে, তবে ইচ্ছাটাই হলো আসল। আমরা প্লেয়ারদের ক্ষেত্রে বলি না যে, ইনটেন্টটা ঠিক আছে কি না। পাপন ভাইয়ের ইনটেনশনটা ভালো। উনি এমপি, বেক্সিমকো ফার্মার মতো বড় একটা প্রতিষ্ঠান চালান, তারপরও ক্রিকেটে যে পরিমাণ সময় দেন, এ থেকেই তো ওনার সদিচ্ছাটা বোঝা যায়। ওনার সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান কথা থেকে বলতে পারি, উনি ক্রিকেটটাও ভালো বোঝেন। ওনার সঙ্গে আমার টিম নিয়ে অনেক চিন্তাই মিলে যায়।

‘পাপন ভাইয়ের সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আমার যে পরিমাণ কথা হয়, তাতে আমি বুঝতে পারি ওনার ভালো কিছু করার ইচ্ছা আছে।’

শেয়ার:
আরও পড়ুন...
স্বত্ব © ২০২৩ দৈনিক দেশবানী
ডিজাইন ও উন্নয়নে - রেনেক্স ল্যাব